নিকলীতে পুলিশ সদস্যকে মারধর, প্রতারকের বাড়ি থেকে তক্ষক, ৬টি নকল স্বর্ণ ও এ পর্যন্ত গ্রেফতার ৬

76


(কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ কিশোরগঞ্জের নিকলী থানার পুলিশ সদর ইউনিয়নের পূর্বগ্রামের নুরুদ্দীন খানের বাড়ী থেকে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে নিকলী থানার পুলিশ ৩টি তক্ষক পাখি, ৬টি নকল স্বর্ণের বার সহ এ পর্যন্ত ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ জানায়, নুরদ্দিন খানের ছোট ভাই জোটন মিয়া (২৬)এর বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ছিল। গত দুই দিন আগে রবিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১ টার দিকে জোটন মিয়াকে ধরতে গেলে ২০-২৫ জনের একদল সন্ত্রাসী পূলিশের উপর অতর্কিত ভাবে হামলা চালিয়ে জোটন কে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে নুরুদ্দীন খান ও তার লোকজন পুলিশকে অর্তকিত ভাবে হামলা চালালে তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়। আহতরা হলেন নিকলী থানার এস আই মোঃ মোকসুদুল (৪৫) , মোঃ শহিদুল্লাহ (৫০) ও শফিকুল ইসলাম (৪০)। এছাড়াও পুলিশ মহিলা সহ ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা মিন্নত আলীর ছেলে আয়ুব আলী (২২) জামাল মিয়ার ছেলে সুমন মিয়া (১৮), নুরুদ্দীন খানের স্ত্রী করিমা খানম (৪০) , স্বাধীন মিয়ার ছেলে টিটু মিয়া(১৬), আইয়ুব আলী ভুইয়ার ছেলে সোহেল হোসেন ভুইয়া (৪০) ও মৃত মফিজুল ইসলামের ছেলে সাইফুল ইসলাম মাছুম (৩৮)। এদের মধ্যে ২ জন কে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে কিশোরগঞ্জ কোর্টে চালান দিয়েছে পুলিশ। এলাকাবাসী ও থানা সূত্রে জানা গেছে, নুরুদ্দীন খানের ছোট ভাই জোটন মিয়া ও ভোটন মিয়া গংরা এলাকায় মাদক সেবন, চুরি , ডাকাতি করে এলাকার মধ্যে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। এলাকার নিরীহ গ্রাম বাসীরা তাদের হাতে জিম্মি রয়েছে প্রায় এক যুগ ধরে। এসব খবর পেয়ে পুলিশ জোটনকে গ্রেফতার করতে গেলে পুলিশকে ও তারা মারধর করে। নিকলী থানার ওসি ঘটনার সত্যতা স্বিকার করে বলেন, প্রতারক নুরুদ্দীন খাণের বিরুদ্ধে নিকলী থানা সহ বেশ কয়েকটি থানায় মামলা রয়েছে বলে উল্লেখ করেন।