কটিয়াদীতে খাঁন পরিবারের উদ্দ্যোগে ৪ হাজার কর্মহীন অসহায় দুস্থ্যদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

57

মাইনুল হক মেনু, স্টাফ রিপোর্টার

কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে খাঁন পরিবারের উদ্দ্যোগে ব্যক্তিগত অর্থায়নে কটিয়াদী পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডে নভেল করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে সামজিক দূরুত্ব বজায় রেখে ৪ হাজার কর্মহীন অসহায় দৃস্থ্য পরিবারের মাঝে খাদ্র সাগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। ঈদের পর একশত গৃহহীন প্রত্যেক পরিবারের মাঝে দেড়বান করে ভালমানের টিন বিতরণ করবেন খাঁন পরিবার।
সারা বিশ্বে নভেল করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে বর্তমানে আতংক বিরাজ করছে। বাংলাদেশের মানুষও এই ভাইরাসের কারণে ঘরবন্দি হয়ে জীবন যাপন করছেন। ঘরবন্দি থাকায় অনেক অসহায় দরিদ্র পরিবার কর্মহীন অবস্থায় খাদ্য সংকটে ভূগছেন। এমন পরিস্থিতিতে কটিয়াদী পৌর সভার কর্মহীন অসহায় দুস্থ্য মানুষদের সহযোগিতায় সরকারের পাশাপাশি খাঁন পরিবারের সদস্য আলী আজগার হোসেন খাঁন সেলিম (লন্ডন প্রবাসী) সাবেক পৌর মেয়র তোফাজ্জল হোসেন খাঁন(দিলীপ) ও সারোয়ার হোসেন খাঁন লিটন (লন্ডন প্রাবাসী) তাদের ব্যক্তিগত অর্থায়নে সাহায্য ও সহযোগিতার হাত বারিয়ে দিয়েছেন।
খাঁন পরিবারের সদস্য ও কটিয়াদী পৌরসভার সাবেক মেয়র তোফাজ্জল হোসেন খাঁন দিলীপের নেতৃত্বে পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে সর্বমোট ৪ হাজার কর্মহীন অসহায় দৃস্থ্য পরিবারের তালিকা তৈরী করে, প্রত্যকের বাড়ি বাড়ি পৌছে দিয়েছেন এসব খাদ্য সামগ্রী।
খাঁন পরিবার কটিয়াদী পেরৈসভার অভূক্তদের জন্য খাবার এবং অসুস্থ মানুষের জন্য চিকিৎসা সেবার ব্যবস্থা করতে দিন-রাত ছুটে চলেছেন মানুষের দুয়ারে দুয়ারে । করোনা ভাইরাসের
প্রাদুর্ভাবে হঠাৎ কর্মহীন হয়ে পড়া নিম্নআয়ের মানুষের পাশে থেকে বাড়িয়ে দিচ্ছেন সহযোগিতার হাত। করোনাকালে কটিয়াদী পৌর এলাকার মানুষের জন্য এমন সেবা দিয়ে যাচ্ছেন সাবেক পৌর মেয়র তোফাজ্জল হোসেন খাঁন দিলীপ ও তাঁর পরিবার। সারাদিন খাদ্য সমাগ্রী বতরণ করেও ক্ষান্ত হন না তিনি। বাসায় ফিরে স্থানীয়দের কাছ থেকে পৌর সভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের পাড়া মহল্লার গরীব দুঃখী অসহায়দের খোজ খবর নেন তিনি। তিনি কটিয়াদী উপজেলার সাবেক সভাপতি ও বর্তমানে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক।
বিশ্বের এই করোনা পরিস্থিতিতে কটিয়াদী পৌরবাসীর সেবায় তিনি নিজেকে নিয়োজিত রেখে করোনায় স্থবির হয়ে পড়া অসহায় দুস্থ্য মানুষের জীবনে গতি ফিরিয়ে আনতে পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ড ও মহল্লায় মহল্লায় অবিরাম ছুটে চলছেন। খাঁন পরিবারের এ ধরনের মহৎ উদ্দ্যোগে খুশি পৌরসভার সকল শ্রেণী পেশার মানুষও।
করোনার প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকেই কর্মহীন অসহায় দৃস্থ্যদের বাড়ি বাড়ি ৫ কেজি চাল, ২ কেজি আলূ ও সাবানসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন তিনি।
কটিয়াদী পৌসভার সাবেক মেয়র তোফাজ্জল হোসেন খাঁন দিলীপ ও খাঁন পরিবারের সদস্য লন্ডন প্রবাসী সারোয়ার হোসেন খাঁন লিটন বলেন, মহান সৃষ্টিকর্তাকে কাছে পাওয়ার অন্যতম মাধ্যম হলো মানবসেবা। মানুষ হিসেবে কর্তব্য মানুষের দুঃখে কষ্টে পাশে থাকা, সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়া মানুষের সেবা করা। দুখী মানুষের পাশে দাঁড়ানো একটি উত্তম ইবাদত। খাঁন পরিবার সবসময় গরীব দুখী অসহায় মানুষের পাশে ছিল এখনো আছে ভবিষ্যতেও থাকবে। কটিয়াদি পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ড এবং মহল্লায় খাঁন পরিবারের পক্ষ থেকে ৪ হাজার দুস্থ্য পরিবারের মধ্যে ৫ কেজি চাল ২ কেজি আলু ও সাবান বিতরণ করা হয়েছে। ঈদের পর একশত গৃহহীন প্রত্যেক পরিবারের মাঝে দেড়বান করে ভালমানের টিন বিতরণ করা হবে। আমরা আশা করি দেশের এ কান্তিকালে এধরনের মহৎ কাজে এলাকার ধনবান ও বিত্তশালীরা এগিয়ে আসবেন। তাহলে করোনায় কর্মহীন অসহায় দৃস্থ্য পরিবারেরগুলো আর না খেয়ে থাকবে না। খাঁন পরিবারের পক্ষ থেকে এ ধরনের সহযোগিতার ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অব্যহত আছে এবং থাকবে। এ সকল খাদ্য সমাগ্রী বিতরণ কার্যক্রম সার্বক্ষণিক তদারকি করছেন খাঁন পরিবারের আলী আজগার হোসেন খাঁন সেলিম (লন্ডন প্রবাসী) সাবেক পৌর মেয়র তোফাজ্জল হোসেন খাঁন(দিলীপ) ও সারোয়ার হোসেন খাঁন লিটন (লন্ডন প্রাবাসী)।