বৃক্ষ রোপণ ভিত্তিক ‘সবুজ পাকুন্দিয়া’ সংগঠনের যাত্রা শুরু

13


কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ার একদল উদ্যামী ও উৎসাহী তরুণদের সমন্বয়ে গ্রীন হাউজ প্রতিক্রিয়া থেকে পরিবেশকে রক্ষা করতে বনায়ন নিয়ে কাজ শুরু করেছে ‘সবুজ পাকুন্দিয়া’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী পরিবেশ, কৃষি উন্নয়ন ও বৃক্ষ রোপণ ভিত্তিক সংগঠন।
করোনার প্রাদূর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় প্রশাসন কর্তৃক সব ধরনের সামাজিক অনুষ্ঠান বন্ধ থাকায় বড় পরিসরে আয়োজন না করে ৭জুন(সোমবার)রাতে সংগঠনটির আত্মপ্রকাশ উপলক্ষে অনলাইন মিটিং অনুষ্ঠিত হয়। মিটিংএ উদ্যােক্তাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, আফরান জাওয়াদ আদিব, প্রিন্স হৃদয় খান,মাহমুদ শারপি,খায়রুল ইসলাম বুলবুল,জুনাইদ হোসেন প্রমূখ।

সংগঠনটির উদ্যােক্তারা বলেন, দিন দিন বিশ্ব তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ায় পৃথিবীজুড়ে কার্বন ডাই অক্সাইড গ্যাসের পরিমাণ বৃদ্ধির কারণে গ্লোবাল ওয়ার্মিং বৃদ্ধি পাচ্ছে। আমাদের দেশের পরিবেশ, বিশেষত শহরাঞ্চল দূষিত হচ্ছে। আমাদের বায়ুমণ্ডলে কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ বাড়ছে। লোকেরা জ্বালানী ও আশ্রয়ের জন্য গাছ কেটে ফেলছে এবং নির্বিচারে বন ধ্বংস করছে। বন উজাড়ের ফলে বনের গাছপালা উর্বর হয়ে উঠছে। গাছপালা বায়ু দূষণ কমাতে সহায়তা করে।যদি আমরা বর্তমান হারে বনের গাছগুলি কাটা বন্ধ না করি, শীঘ্রই আমাদের বনের গাছগুলি খালি হয়ে যাবে। আমাদের দেশে এবং বনে গাছপালা না থাকলে, দেশটি একদিন মরুভূমিতে পরিণত হবে। তাই দেশের পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখতে আমাদের আরও বেশি গাছ লাগাতে হবে এবং বৃক্ষরোপণের কর্মসূচি পালন করতে হবে। এখনই যদি আমরা পদক্ষেপ গ্রহন না করি তবে আমাদের পরিবেশ ভারসাম্যহীন হয়ে পড়বে।তাই সবাই যদি সবার অবস্থান থেকে বৃক্ষ রোপণ করি ফলে একদিকে যেমন পরিবেশ সংরক্ষিত হবে অপরদিকে পাকুন্দিয়া হয়ে উঠবে সবুজ পাকুন্দিয়া।